শিশুদের জন্য অবারিত ছিল বঙ্গবন্ধুর দুয়ার

সম্পাদনা/লেখক: আব্দুল্লাহ আল মামুন

শিশুদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছিল অবারিত দুয়ার। তাদের সঙ্গে সময় কাটানো, তাদের জন্য কিছু করার আগ্রহ ছিল তার প্রবল। এমনকি তিনিই ভেবেছিলেন শিশুদের সুরক্ষায় পূর্ণাঙ্গ একটি আইন থাকা জরুরি। আর এই পথ ধরেই ১৯৭৪ সালের ২২ জুন জাতীয় শিশু আইন (চিলড্রেন অ্যাক্ট) প্রণয়ন করা হয়।

বঙ্গবন্ধু বিশ্বাস করতেন, আজকের শিশুরাই জাতির ভবিষ্যৎ। আগামী দিনে দেশগড়ার নেতৃত্ব দেবে তারাই। ফলে আগে তাদেরই গড়ে তুলতে হবে। যখন তিনি বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠেননি, একজন নেতা হয়ে উঠছেন কেবল, তখনও তিনি তার পরিকল্পনায় শিশুবান্ধব সিদ্ধান্ত রাখতেন বলে জানিয়েছেন তার সহযোদ্ধারা। শিশুরা সৃজনশীল ও মুক্তমনের মানুষ হিসেবে গড়ে উঠুক সেটি ছিল তার আকাঙ্ক্ষার বিষয়। আর স্বাধীন বাংলাদেশে তিনি যখন সবার বঙ্গবন্ধু হয়ে উঠেছেন, তখনও তিনি শিশুদের সঙ্গে সময় কাটাতে পছন্দ করতেন। শিশুদের কোনেও সমাবেশে গেলে বা শিশুরা গণভবনে তার কাছে গেলে, তিনি শিশুর মতো তাদের সঙ্গে মিশে যেতেন। সেই দিক বিবেচনায় ২০০৯ সাল থেকে তার জন্মদিনের দিনটিকে জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

কথা সাহিত্যিক সেলিনা হোসেন বলেন, একটি স্বাধীন দেশের স্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন একটি ঐতিহাসিক দিন। এ দিনটি কেন জাতীয় শিশুদিবস হলো—এ নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন করেন। এর উত্তর লুকিয়ে আছে বঙ্গবন্ধুর শিশুদের জন্য নেওয়া নানা কর্মসূচির মধ্যেই। বঙ্গবন্ধু শিশুদের খুব আদর করতেন। তিনি জানতেন, শিশুদের তৈরি করতে পারলেই আগামী দিনে তিনি পাবেন একটি সৎ ও সাহসী জাতি।

উদিসা ইসলাম
১৭ মার্চ ২০১৬ লিংক

আরও পড়ুন